মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
খবর

৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পাওয়ায় ॥ হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্মরণকালের আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর “মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল” রেজিস্ট্রারে অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে “বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য”- এর স্বীকৃতি লাভ করায় সারাদেশে ন্যায় হবিগঞ্জেও বিশাল আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। গতকাল সকাল ১০টায় নিমতলা কালেক্টরেট প্রাঙ্গণ থেকে বিশাল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে নিমতলায় এসে শেষ হয়। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্মরণকালের বৃহৎ(সোয়া দুই কিলোমিটার) র‌্যালিতে নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমা, পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক সফিউল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফজলুল জাহিদ পাভেল, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) নূরুল ইসলাম, পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারেক মোঃ জাকারিয়া, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কুদ্দুছ আলী সরকার, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী,  সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী পাঠান, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি চৌধুরী মোহাম্মদ ফরিয়াদ, জেলা আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লুৎফুররহমান তালুকদার, জেলা আনসার ও ভিডিপি ’র কমান্ডার মোঃ সাইফুল্লাহ রাসেল পিএএম, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক অনুপ কুমার দেব মনা, অ্যাডভোকেট আবুল ফজল, অ্যাডভোকেট নিলান্দ্রী শেখর টিটু, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুল আমিন ওসমান, জেলা পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহ ফখরুজ্জামান, জনকন্ঠের জেলা প্রতিনিধি রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন, সিবিএ নেতা শাহ জয়নাল আবেদীন রাসেল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক গউছ উদ্দিন চৌধুরী, সদস্য সচিব পংকজ কান্তি দাশসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, বীরমুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সুশীল সমাজ, বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশগ্রন করেন। এর আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। র‌্যালী শেষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের উপর ২টি গ্রুপে রচনা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।  সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এর আগে সকাল ৯.৩০ মিনিটে জেলা আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচীর সূচনা হয়।

ছবি


ফাইল


প্রকাশনের তারিখ

২০১৭-১১-২৬

আর্কাইভ তারিখ

২০১৭-১২-১৪